নতুন প্রকাশনা সমূহ:

গিয়ারবক্সের তেল অপসারণ,লিকেজ এবং সাবধানতা

১৮ জানু, ২০১৭ চাকা বিডি মন্তব্য নাই টিপস এন্ড ট্রিক্স, হোম

লিখেছেন রাইহান সুলতানা জিহান।

একটি গিয়ার বক্স সম্পূর্ণ আলাদা ধাতু দিয়ে তৈরি করা হয়। দুটি ধাতুর মধ্যে যখন ঘর্ষণ সৃষ্টি হয় ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। সৃষ্ট ক্ষতি প্রতিরোধ করার জন্য গিয়ার বক্সে পিচ্ছিল পদার্থ যেমন ল্যুব্রিকেন্ট বা তেল ব্যবহার করা হয়। ইঞ্জিনের তেল এর মতই গিয়ার বক্সের তেলেও উচ্চ তাপমাত্রা প্রতিরোধের সক্ষমতা থাকে।

Gear-oil-change-640x350

প্রতি ৫০,০০০ কিলোমিটার পর পর গিয়ার বক্সের তেল পরিবর্তন করা খুবই ভালো। এ ক্ষেত্রে যা করনীয় – প্রথমেই নিশ্চিত হয়ে নিতে হবে যে গাড়িটি পুরোপুরি সমতল স্থানে আছে কি না। এতে গিয়ার বক্সের তেলের পরিমান বুঝতে সহজ হবে। অনেক গাড়িতে গিয়ার বক্সের পাশে নাট থাকে যা তেলের পরিমাপ নির্দেশক হিসেবে কাজ করে। আবার কিছু গাড়িতে তেল মাপার জন্য মাপকাঠি থাকে। যদি দেখা যায় যে তেলের পরিমাণ ক্রমান্বয়ে কমে যাচ্ছে এ  ক্ষেত্রে সবচেয়ে ভালো কাজটি হবে সাথে সাথে গিয়ার বক্সে কোন ফাটল বা ছিদ্র আছে কি না তা পরীক্ষা করা। মাপকাঠির দাগ অনুযায়ী দেখে নিতে হবে তেলের পরিমাণ কতটুকু। মাপকাঠিটি আস্তে আস্তে করে সরিয়ে নিয়ে তা মুছে তা পুনরায় প্রতিস্থাপন করতে হবে। একটি কথা সবসময় মনে রাখতে হবে যে , গিয়ার বক্সে অতিরিক্ত তেল নেয়া উচিত নয়।

Drain-Plug-and-Filler-plug

গিয়ার বক্সের তেল অপশারনঃ প্রথমে গাড়িটিকে কয়েক ঘণ্টা সমতল স্থানে স্থির করে রাখতে হবে। যেন তেল গিয়ারবক্সের তলায় অবস্থান করে, সাবধানে জ্যাকটি খুলে আক্সেল স্থির রাখতে হবে যেন গাড়ি সামনে পেছনে সাপোর্ট পায়। গিয়ার বক্সের নিচে তেল অপসারণের জন্য স্ক্রু থাকে। বিভিন্ন গাড়ির বিভিন্ন রকম স্ক্রু। এর জন্য হয়তো রেঞ্চ, বা এলেন কী বা  চার কোনা স্ক্রু ডাইভার প্রয়োজন হতে পারে। এছাড়াও গাড়ির সামনের চাকাও খোলার দরকার হতে পারে। স্ক্রু খোলার পূর্বে গিয়ারবক্সের নিচে একটি পাত্র রাখতে হবে। ড্রেইন  নাট যখন সম্পূর্ণ খুলে যাবে তেল অপসারিত হতে শুরু করবে। এ সময় ফিলার নাটটিও খুলে দিলে ভালো হয়, কারণ বাতাস চলাচলের ফলে তেল পুরোপুরিভাবে অপসারিত হবে।

gearboxfiller

গিয়ার বক্সের তেল সম্পূর্ণ অপসারণ করা হলে ড্রেইন নাটটি আবার শক্ত করে লাগিয়ে দিতে হবে। এবার গিয়ারবক্সের ফিলার নাট পর্যন্ত  তেল রিফিল করে নিয়ে  ফিলার প্লাগটিও শক্ত করে বন্ধ  করে এর চারপাশ পরিষ্কার করে দিতে হবে। তবে সবার আগে গিয়ারবক্সের তেল অপসারণ ও পুনরায় ভর্তি সম্পর্কিত ম্যানুয়াল পড়ে নিলে সবচেয়ে বেশি ভালো হয়।

উপরন্তু, গিয়ারবক্সের ফুটো বা ছিদ্র সম্পর্কে সাবধান থাকতে হবে কারণ এগুলো বক্সের চারপাশে থাকতে পারে। এই ধরনের লিকেজ দূর করতে বিশেষ ধরনের রাবার জাতীয় আইকা বা আঠা ব্যাবহার করা হয়। তবে প্রতিষেধকের চেয়ে প্রতিরোধই উত্তম। নতুন গিয়ার বক্স ফিট করে নিলে ভবিষ্যতে দুর্ঘটনা এড়ানো সম্ভব।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

2 + 3 =

sidebar ad space 1

ads1

sidebar ad space 2



আমাদের সাথে থাকুন



18 - 5 =  

sidebar ad space 3



  আমাদের অনুসরণ করুণ

যোগাযোগ করুণ

www.chakabd.com

email address:
info@chakabd.com
chakabd2015@gmail.com

67/D, Yakub South Center,Kalabagan, Dhaka-1205
Phone No. 01711281218

  টুইটার আপডেট

  ফেসবুক আপডেট